কিভাবে নিজের আত্মবিশ্বাস বাড়াবেন ?
March 23, 2020
ইন্টার্ভিউয়ের ক্ষেত্রে দুই ধরনের স্কিল বা দক্ষতা থাকা গুরুত্বপূর্ন
March 28, 2020
Spread the love

ডিজিটাল মার্কেটিং একটি টার্ম বর্তমান বিশ্বে বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। তাহলে চলুন জেনে আসি ডিজিটাল মার্কেটিং কী এবং তার গুরুত্ব

ডিজিটাল মার্কেটিং

সহজ ভাষায়, ডিজিটাল ডিভাইসে -যেমন, কম্পিউটার ও মোবাইল ফোনে, যে কোন পণ্য বা সার্ভিসের প্রচারণা চালানোকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়। যেমন, আপনি ফেসবুক ব্রাউজ করার সময় কিছু স্পন্সরড পোস্ট দেখতে পান।

ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের প্রকারভেদ

মার্কেটিংয়ের কন্টেন্টের ধরনের ভিত্তিতে ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের ধরন আলাদা হয়। প্রায় সময় এগুলো একে আপরের সাথে সম্পর্কিত হয় তাই ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের প্রকারভেদ কোণো সুনির্দিষ্ট সংখ্যায় ভাগ করা যায় না। টোবে এর কয়েকটি জনপ্রিয় ভাগ নিয়ে নিন্মে আলচনা করা হলঃ-

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং

ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম, টুইটারসহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে পণ্য বা সার্ভিসের বিজ্ঞাপন বা  প্রচারণা চালানো হয় তাকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং। সোশ্যাল মিডিয়া প্রায় সব বয়সের মানুষের কাছে জনপ্রিয়। এতে অল্প খরচে ও স্বল্প সময়ে একসাথে সংখ্যক গ্রাহকের কাছে সহজে পণ্য বা সার্ভিসের প্রচারণা চালানো সম্ভব।

মেইল মার্কেটিং

ই-মেইলের মাধ্যমে কোন পণ্য বা সার্ভিসের বিজ্ঞাপন বা প্রচারণা চালানোকে ই-মেইল মার্কেটিং বলে। সাধারণত অনলাইন কোন ফর্মের মাধ্যমে সম্ভাব্য ক্রেতাদের ইমেইল অ্যাড্রেস সংগ্রহ করে তাদের কে ই-মেইলের পণ্য বা সার্ভিসের সম্পর্কে জানান হয়।

টেলি মার্কেটিং 

মোবাইল বো টেলিফোনের মাধ্যমে পণ্য বা সার্ভিসের প্রচার করাই হচ্ছে টেলি মার্কেটিং। এছাড়া, এসএমএস পাঠিয়েও মোবাইল মার্কেটিং চালানো সম্ভব। মোবাইল ফোন বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় ডিজিটাল ডিভাইস। ছোট বড় প্রায় সবার হাতেই এখন মোবাইল ফোন দেখা যায়। তাই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রচারণা চালানোও সহজ।

 

Comments are closed.